Home / মিডিয়া নিউজ / হোটেলের রিসেপশনিস্ট থেকে বুবলীর নায়ক

হোটেলের রিসেপশনিস্ট থেকে বুবলীর নায়ক

প্রতিভা কখনও চাপা থাকে না। বাংলাদেশের অভিনেতা আজাদ আদরের জীবনের পট পরিবর্তন সেই

কথাই যেনো আবার প্রমাণ করল। মেধাবি ছাত্র আজাদ আদর হোটেল ম্যানেজমেন্ট নিয়ে পড়াশুনা

করার পরে ইন্টার্ন হিসাবে কাজ করেছেন দেশের এক অভিজাত হোটেলে। চার মাস চাকরি করার পর সেখানে স্থায়ী হন আজাদ। পাঁচতারা হোটেলের রিসেপশনিস্ট থেকে এবার রুপোলি পর্দায় পা রাখতে চলেছেন এই নবাগত নায়ক।

আজাদ আদরের অভিনেতা হিসাবে আত্মপ্রকাশ ঘটতে চলেছে ‘তালাশ’ ছবির মাধ্যমে। ছবিটি শুক্রবার ১৭ জুন মুক্তি পেতে চলেছে। এই ছবিতে আজাদ আদরের বিপরীতে আছেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী বুবলী। ‘তালাশ’ ছবির পরিচালক সৈকত নাসির জানিয়েছেন, দেশের ৫৩টি হলে মুক্তি একযোগে মুক্তি পেতে চলেছে এই ছবিটি।

ছবিতে একজন রকস্টারের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন আজাদ আদর। স্বাভাবিককভাবেই প্রথম ছবির মুক্তি ঘিরে প্রবল উৎসাহী আজাদ আদর। তবে এই নায়ক স্পষ্টভাবে জানিয়েছেন, তিনি কোনও নিয়তিতে বিশ্বাস করেন না, তাঁর বিশ্বাস তাঁর পরিশ্রমকে দর্শকরা মর্যাদা দেবেন।

আদর লেখাপড়া করেছেন হোটেল ম্যানেজমেন্টে। সেখান থেকে ইন্টার্নের জন্য দেশের অভিজাত হোটেল ওয়েস্টিনের রিসেপশনে যোগ দিয়েছিলেন বলে জানান। চারমাস চাকরী করে সেখানে স্থায়ীও হন।
হোটেলের রিসেপশনিস্ট থেকে বুবলীর নায়ক

২০১৪ সালে বাংলাদেশের এক সৌন্দর্য প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন আদর। সেই প্রতিযোগিতা থেকেই রাতারাতি পরিচিতি পান আজাদ আদর। চাকরি ছেড়ে বিজ্ঞাপন ও নাটকে কাজ করেন তিনি। তিনি জানিয়েছেন, ২০১৮ সালের পর ছোট পর্দার কাজ ছেড়ে দিয়ে কেবল সিনেমাতেই মনোনিবেশ করেন তিনি।

ইতিমধ্যেই আজাদ আদর আরও বেশ কয়েকটি ছবির কাজ শুরু করে দিয়েছেন। তার মধ্যে রয়েছে সাইফ চন্দনের লোকাল, মোস্তাফিজুর রহমান মানিকের ‘যাও পাখি বলো তারে’, আলোক হাসানের ‘নাকফুল’।

Check Also

‘এখন মরলেও তৃপ্তি নিয়ে মরতে পারবো’

ঢাকাই সিনেমায় ষাটের দশক থেকেই সফল পদচারণা সুজাতার। ১৯৬৫ সালের রূপবান চলচ্চিত্রে অভিনয় করে পেয়েছিলেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published.